দেশজুড়েপটিয়ার খবরপ্রিয় চট্রগ্রামরাজনীতি

বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে হলে অপরাজনীতির শেকড় উপড়ে ফেলতে হবে-বদিউল আলম

যুবলীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ম-সাধারন বদিউল আলম বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে হলে সমাজের রন্ধে রন্ধে সৃষ্ট দূর্নীতি অনিয়ম আর অপরাজনীতির শেকড় উপড়ে ফেলতে হবে।

শোকাবহ আগষ্টের শেষ দিনে পটিয়া উপজেলার ধলঘাট ইউনিয়নে কৃষকলীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান বক্তার বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।।

মুহাম্মদ বদিউল আলম বলেন বঙ্গবন্ধু চেয়েছিলেন একটি শোষণ হীন পূঁজিবাদী আগ্রাসন মুক্ত রাষ্ট্র ব্যাবস্থা; যেখানে ধনীরা শুধু ধনী হবে না, কৃষক নিষ্পেষিত হবে না, কৃষক দিনমজুর, শিক্ষক, ছাত্র,পেশাজীবী, সকল শ্রেণীর মানুষের সমান অধিকার থাকবে।

সর্বপোরি সকলের জন্য একটি সোনার বাংলা গড়ে তুলতে চেয়েছিলেন, কিন্তুু জিয়া মোশতাক খুনি চক্রের কিলিং মিশনে সেই সোনার বাংলা গড়ার পথ রুদ্ধ হয়ে যায়।

দীর্ঘ ২১বছর পর বঙ্গবন্ধু কন্যা রাষ্ট্র ক্ষমতায় এসে কালো আইন ইনডিমিনিটি অধ্যাদেশ বাতিল করে খুনিদের বিচারের মুখোমুখি করেন। সেই খুনি চক্রের দালালেরা এখনো সক্রিয়।

তারা এখনো দেশ বিরোধী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। আমি দাবী জানাই একটি কমিশন গঠনের মাধ্যমে ৭৫’র খুনি চক্র ও তাদের দালালদের মুখোশ উন্মোচন করা হোক।

আজ ভারাক্রান্ত মন নিয়ে বলতে হয় একজন ব্যাক্তি ও তার পরিবার আওয়ামীলীগ এর নৌকায় চড়ে এম,পি হুইপ হয়ে পটিয়ার আওয়ামীলীগ ধ্বংস করার মিশনে নেমেছে।

এ যেনো জিয়া মুশতাকের প্রেতাত্মা, তিনি আওয়ামীলীগ এর দূর্দিনের কর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা হামলা হাঙ্গামা করে,নেতাকর্মীদের কোণঠাসা করে ভূমিদস্যু মাদককারবারী, অস্ত্রবাজ গুন্ডাদের নিয়ে রাজনীতি নিয়ন্ত্রণ করার অপচেষ্টা করছেন।

আমি তাদের হুশিয়ার করে বলতে চাই আওয়ামীলীগ ধ্বংসের অপচেষ্টা বরদাস্ত করা হবে না। আমরা সংগঠনের শৃঙ্খলার স্বার্থে ধৈর্য ধারণ করছি। কিন্তুু জনগন চুপ থাকবে না। মনোনয়ন বাণিজ্যের চিন্তা বাদ দিয়ে দেন।

শেখ হাসিনার নৌকা নিয়ে ব্যবসা করার চেষ্টা করলে পটিয়ার রাজনীতিক নেতাকর্মী ও জনগনকে সাথে নিয়ে প্রতিহত করা হবে।

সমাজের রন্ধে রন্ধে যে দূর্নীতি অনিয়ম অপরাজনীতির সিন্ডিকেট গড়ে তুলেছেন তার শেখড় উপড়ে ফেলা হবে ।।
ধলঘাট ইউনিয়ন কৃষকলীগের উদ্দ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায় সর্বস্তরের মানুষের জন্য গনভোজের আয়োজন করা হয়।

১০নং ধলঘাট ইউনিয়ন কৃষকলীগের সাভাপতি আলী আহমদ বাবুলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বৃহত্তর পটিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শামশুদ্দীন আহমেদ।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পটিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক সাবেক চেয়ারম্যান আবদুল মতিন চৌধুরী,বীর মুক্তিযোদ্ধা চৌধুরী মাহবুবুর রহমান,বীর মুক্তিযোদ্ধা আ,জ,ম সাদেক, সাবেক ছাত্রনেতা হুমায়ুন কবির রাশেদ,সাবেক ছাত্রনেতা মোহাম্মদ সাহাব উদ্দিন, পটিয়া উপজেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ন-আহবায়ক জমির উদ্দিন, পটিয়া পৌরসভা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সোহেল ইমরান, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সাইফুল ইসলাম, পটিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা শাহজাহান চৌধুরী,, পটিয়া উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি আবু সৈয়দ, পটিয়া উপজেলা মৎস্যজীবী লীগের আহবায়ক সাইফুল ইসলাম, পটিয়া উপজেলা যুবলীগের সাবেক তথ্য ও গবেষনা বিষয়ক সম্পাদক রিটন বড়ুয়া ও সাবেক ছাত্রনেতা আজিজুল হক মানিকের যৌথ সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন শ্রমিক লীগ নেতা খোরশেদ আলম,সাইফুদ্দিন ভোলা, ছাত্রলীগ নেতা আবদুল কাদের, যুবনেতা সাইফুল ইসলাম সাইফু, তৌহিদুল আলম জুয়েল, উজ্জল ঘোষ, সাইফুল ইসলাম জুয়েল, উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা সাজ্জাদ হোসাইন, সাকিব, সাজ্জাদুর রহমান,রিাফাত,প্রমুখ।