অন্যান্য সংবাদ

একেই বলে প্রেম ❤️

“এ ব্যথা কী যে ব্যথা বোঝে কি আনজনে…”- মার্কিন মুলুকের এক জোড়া হাঁসের (Canadian Goose) বাস্তব প্রেমের কাহিনী এ কথাই মনে করাল। একটি হাঁস অসুস্থ ছিল। চিকিৎসা চলছিল তার। আর উৎকণ্ঠায় দরজার বাইরে ঠায় দাঁড়িয়েছিল সঙ্গিনী।

আমেরিকার কেপ ওয়াইল্ডলাইফ সেন্টারে (Cape Wildlife Center) ঘটেছে ঘটনাটি। সেই সংস্থার পক্ষ থেকেই ফেসবুকে ছবি পোস্ট করা হয়েছে। ছবির ক্যাপশন থেকে যা জানা যাচ্ছে তাতে, সেন্টারের বাইরেই হাঁস দু’টি ঘুরে বেড়াত। অনেকদিন ধরে সেখানে তাদের বাস। পুরুষ হাঁসটিকে আর্নল্ড নাম দেওয়া হয়েছিল।

একদিন তাকে বারান্দায় অসুস্থ অবস্থায় দেখতে পান এক কর্মী। ঠিক করে চলতে পারছিল না হাঁসটি। কাছে গিয়ে ওই কর্মী দেখতে পান, তার পায়ে ক্ষত রয়েছে। হয়তো জলে কিংবা জঙ্গলে ঘোরার সময় কোনও বন্য প্রাণী আক্রমণ করেছিল।
আর্নল্ডের এই অবস্থা দেখে তাকে সেন্টারের ভিতরে নিয়ে আসেন সেন্টারের কর্মী। সেখানে তার চিকিৎসা শুরু হয়।

প্রাথমিক চিকিৎসার পর দেখা যায়, হাঁসটির অস্ত্রোপচার প্রয়োজন। সেই মতো অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। অস্ত্রোপচার শুরু হওয়ার আগেই অপারেশন থিয়েটারের দরজায় টোকা পড়ে। সেই শব্দে ঘাড় ঘুরিয়ে কর্মীরা দেখেন দরজার পাশে এসে উপস্থিত হয়েছে আর্নল্ডের সঙ্গিনী। দরজা খোলার চেষ্টা করছে সে। কিন্তু পারছে না। কিছুক্ষণের চেষ্টার পর ব্যর্থ হয়ে দরজার সামনেই দাঁড়িয়ে পড়ে। আর্নল্ডের সঙ্গে কী হচ্ছে তা দেখে বোঝার চেষ্টা করে। এমন পরিস্থিতিতেই আর্নল্ডের অস্ত্রোপচার করেন চিকিৎসকরা। কিছুক্ষণ পর তার জ্ঞান ফিরলে দরজা খুলে দেওয়া হয়। ছুটে আর্নল্ডের কাছে চলে আসে তার সঙ্গিনী। একে অন্যকে দেখে আস্বস্ত হয়। এখন অনেকটাই ভাল আছে আর্নল্ড। তবে পুরোপুরি সুস্থ হতে আরও কিছুটা সময় লাগবে। তখন আবারও প্রিয়তমার সঙ্গে জলে, জঙ্গলে ঘুরে বেড়াবে সে। হাঁস যুগলের এ কাহিনিতে মুগ্ধ নেটিজেনরা।

সূত্র- সংবাদ প্রতিদিন↵