জাতীয়স্বাস্হ্য

১দিনে শতের কাছাকাছি পৌঁছেছে মৃত্যু

বাংলাদেশে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, গত চব্বিশ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসের জন্য নমুনা পরীক্ষা ও আক্রান্তদের শনাক্তের সংখ্যা কিছুটা কমলেও মৃত্যুর ক্ষেত্রে নতুন রেকর্ড হয়েছে।

সরকারি তথ্যে বলা হয়েছে যে এই সময়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন এ যাবৎকালের মধ্যে এক দিনে সর্বোচ্চ – ৯৬ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৫৯ ও নারী ৩৭ জন।

এ নিয়ে করোনাভাইরাসের কারণে বাংলাদেশে মোট মারা গেলেন ৯,৯৮৭ জন।

এছাড়া, এই ২৪ ঘণ্টা সময়ে করোনাভাইরাসে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৫,১৮৫ জন। এ নিয়ে দেশটিতে মোট শনাক্ত হলেন ৭ লাখ ৩ হাজার ১৭০ জন।

অধিদপ্তর বলছে, ২৫৫টি পরীক্ষাগারে ২৪ হাজার ৮২৫ টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে গত ২৪ ঘণ্টায়।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, এই ২৪ ঘণ্টায় বাংলাদেশে সুস্থ হয়েছেন ৫,৩৩৩ জন।

আর গত ২৪ ঘন্টায় শনাক্তের হার ছিল ২০.৮৯ শতাংশ, মৃত্যুর হার ১.৪২ শতাংশ এবং সেই সঙ্গে সুস্থতার হার ছিলো ৮৪.০৯ শতাংশ।

এর আগে সোমবারের বিজ্ঞপ্তিতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর তার আগের ২৪ ঘণ্টায় ৮৩ জনের মৃত্যুর খবর দিয়েছিলো। আর গতকাল ৬৯ জনের মৃত্যুর কথা জানানো হয়েছিল।ল

স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে ১৪ এপ্রিল দেয়া বিজ্ঞপ্তি
ছবির ক্যাপশান,স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে ১৪ এপ্রিল দেয়া বিজ্ঞপ্তি

বাংলাদেশে বেশ কিছুদিন যাবৎ করোনাভাইরাসে মৃত্যু এবং শনাক্তের সংখ্যা বেড়ে চলছে।

গত বছরের মার্চের ৮ তারিখে দেশটিতে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হিসেবে কাউকে শনাক্ত করার তথ্য দিয়েছিলো স্বাস্থ্য বিভাগ।

এরপরের দুই মাস দৈনিক শনাক্তের সংখ্যা তিন অংকের মধ্যে থাকলেও সেটা বাড়তে বাড়তে জুলাই মাসে সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছায়।

এরপর বেশ কিছুদিন দৈনিক শনাক্তের সংখ্যা কমতে কমতে এক পর্যায়ে তিনশোর ঘরে নেমে এসেছিল।

তবে এ বছর মার্চের শুরু থেকেই শনাক্তে ঊর্ধ্বগতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

চিকিৎসক এবং জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, হাসপাতালগুলোর ওপর যে হারে চাপ বাড়ছে, তাতে করোনাভাইরাসের চিকিৎসা সেবা ভেঙে পড়ার উপক্রম হয়েছে।