জাতীয়পটিয়ার খবরপ্রিয় চট্রগ্রাম

কাউন্সিলর রাজীব নির্দোষ ; তাকে মুক্তি দিন-সংবাদ সম্মেলনে সরকারের কাছে অনুরোধ করেছে পরিবার

মাহবুবুল আলম : পটিয়া পৌরসভার নব নির্বাচিত ৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরওয়ার কামাল রাজীবকে সম্পূর্ণ নির্দোষ দাবি করে অবিলম্বে তার মুক্তি দাবী করেছে তার পরিবার।

মঙ্গলবার দুপুর ১২ টায় পটিয়া ক্লাব হলরুমে এক জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে তার স্ত্রী কানিজ ফাতেমা লিখিত বক্তব্যে জানান, ১৪ ফেব্রুয়ারী ভোট চলাকালে বেলা ১২টায় গুলি বর্ষণ ও হত্যাকান্ডের ঘটনার জন্য জাতীয় পার্টির দুই নেতার পুত্রকে দায়ী করেছেন।

লিখিত অভিযোগে তিনি জানান শান্তিপূর্ণভাবে ভোট চলাকালে জাতীয় পার্টির নেতা কাউন্সিলর প্রার্থী আবদুল মান্নানের দুই পুত্র ধিহান ও রায়হান এবং জাতীয় পার্টি চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার সভাপতি ও মেয়র প্রার্থী সামশুল আলম মাষ্টারের পুত্র মাঈনুল হোসেন তাদের সংঘবদ্ধ অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা পটিয়া পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ড কেন্দ্রের বাইরে জ্বালাপোড়াও, গুলিবর্ষণ, ইট, পাথর নিক্ষেপ ও অগ্নি সংযোগের মাধ্যমে উক্ত ভোট কেন্দ্রে এক ভীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করে। এসময় তাদের আক্রমণে আবদুল মাবুদ (৫০) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়।

ঘটনা চলাকালীন তার স্বামী আওয়ামী লীগ নেতা ও কাউন্সিলর প্রার্থী সরোয়ার কামাল রাজীব ও কাউন্সিলর প্রার্থী আবদুল মান্নান দু’জন ভোট কেন্দ্রে ছিলেন। বাইরে কি ঘটনা ঘটছে তারা জানতেন না। সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়লে তার স্বামীসহ এলাকার ভোটারেরা দ্বিগবিদিক ছুটতে থাকে। এসময় বেশ কয়েকজন ব্যক্তি আহত হয়। পরে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর লোকজন এসে আহতদের পটিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে আবদুল মাবুদের মৃত্যু ঘটে। ঘটনার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনের জন্য আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা দুই প্রার্থীকে থানায় নিয়ে যায়।

পরবর্তীতে থানা থেকে আবদুল মান্নানকে ছেড়ে দেওয়া হলেও তার স্বামী কাউন্সিলর প্রার্থী সরোয়ার কামাল রাজীবকে ছেড়ে না দিয়ে আবদুল মান্নানকে বাদী করে একটি মিথ্যা মামলা রেকর্ড করেন। উক্ত মামলায় সরোয়ার কামাল রাজীবকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।

তিনি তার নির্দোষ স্বামী এবং নির্বাচিত কাউন্সিলর সরোয়ার কামাল রাজীবকে অবিলম্বে মুক্তি দিয়ে মিথ্যা মামলা থেকে অব্যাহতির মাধ্যমে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি হিসেবে লোকজনের সেবা করার সুযোগ দেওয়ার জন্য প্রশাসনের কাছে দাবী জানান। এছাড়া প্রকৃত দোষীদের খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থার আহবান জানিয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে ৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর এবং রাজীবের রাজনৈতিক সহযোদ্ধা গোফরান রানা, তাদের পারিবারিক আত্মীয় সাংবাদিক ও শিক্ষক এ,টি,এম,তোহা, সওয়ার কামালের মা মরিয়ম বেগম, ভাই মোস্তফা কামাল চৌধুরী, রাশেদ কামাল সুজন, নওশাদ কামাল শুভ উপস্থিত ছিলেন।