অন্যান্য সংবাদ

বাড়িতে উল্কাপাতে কোটিপতি যুবক

এ যেন উল্কাপাত নয়, ছাঁদ ফুড়ে ধনরাশির শুভ আগমন। বাড়ির উপর বিকট শব্দে যখন উল্কাখণ্ডটি অবতরণ করল, তখন রীতিমত ভয়ে ও আশঙ্কায়  মালিক জসুয়া প্রমোদ গুনছিলেন। তবে পর জানা গেলো— এই মহাজাগতিক খণ্ডটির কারণে রাতারাতি কোটিপতি হতে যাচ্ছেন তিনি।বিজ্ঞাপন

জসুয়া পেশায় দিনমজুর। তৈরি করেন কফিন। ইন্দোনেশিয়ার উত্তর সুমাত্রার কোলাঙ্গ নিবাসী। সম্প্রতি উল্কাখণ্ডের আঘাতে তার বাড়ির ছাদের দফারফা হয়ে যায়। কিন্তু এই ক্ষতিই যে হয়ে উঠবে ভাগ্য বদলের কারণ— তা হয়ত ভাবেননি।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলোকে ঘটনার বিস্তারিত বলেন তিনি— “ বাড়ির পাশেই কাজ করছিলাম সেদিন। হঠাৎ বিকট শব্দ করে বাড়ির উপর উল্কাখণ্ডটি পড়লো। উল্কাখণ্ডের আঘাতে টিনের ছাদের একাংশ ফুটো হয়ে যায়। এতে পুরো বাড়ি কেঁপে উঠে। প্রথমে উল্কাখণ্ডটি যখন হাতে নিলাম সেটি বেশ গরম ছিল।

উল্কাখণ্ডটি সংগ্রহ করে স্থানীয় সরকারি অফিসে নিয়ে যান জসুয়া। পরে গবেষণা শেষে জানা যায়, প্রায় ৪ বিলিয়ন বছর আগের উল্কাপিণ্ডের অংশ এই খণ্ডটি। এই উল্কাখণ্ডের প্রতি গ্রামের দর ঠিক হয় ৮৫৭ ডলার। এক সংগ্রহকারী এই উল্কাখণ্ডটি কেনেন। ২ কেজি ২০০ গ্রাম ওজনের এই উল্কাখণ্ডটির দাম পুরোটাই পাবেন জসুয়া। এতে টাকার অঙ্কে প্রায় ১৫ কোটি টাকার মালিক বনে যাবেন তিনি।

উল্লেখ্য, একইদিন ঐ এলাকায় আরও তিনটি উল্কাখণ্ড পড়েছিল। তবে শুধু বাড়িতে পড়া উল্কাখণ্ডটিরই দাম পেয়েছেন তিনি। খবর জাকার্তা পোস্ট।