খেলার খবরজাতীয়

জতীয় দলে যোগ দিচ্ছেন বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত বৃটিশ ফুটবলার হাফিজ

ডেনমার্ক প্রবাসী বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ফুটবলার জামাল ভূঁইয়া এখন দেশের ফুটবলের সবচেয়ে বড় তারকা। ফিনল্যান্ড প্রবাসী ফুটবলার তারিক কাজীও জাতীয় দলে অভিষেকের অপেক্ষায়। এবার তাদের উত্তরসূরির সন্ধানে নেমেছেন জাতীয় দলের হেড কোচ জেমি ডে। তার নজরে এসেছে হাফিজুর রহমান নামে এক বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত বৃটিশ ফুটবলার। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের একাডেমির এই খেলোয়াড় খেলছেন প্রেস্টন নর্থ এন্ডের যুব দলে। হাফিজের সঙ্গে ইতিমধ্যে যোগাযোগ করেছেন বাংলাদেশের হেড কোচ। এদিকে বাফুফের পরিকল্পনা পেলে দ্রুতই ঢাকায় ফিরতে চান জেমি ডে।
৬ বছর বয়সে ফুটবল খেলা শুরু করেন হাফিজুল।

ইংলিশ ক্লাব ব্ল্যাকবার্ন রোভার্সের একাডেমিতে হাতেখড়ির পর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিখ্যাত ইয়ুথ একাডেমিতে ফুটবলের দীক্ষা নিয়েছেন এই উইঙ্গার। সেখানে দুই বছর কাটিয়ে যোগ দেন প্রেস্টন নর্থ এন্ড ক্লাবের যুব দলে। ওখানেই কেটেছে পুরো কৈশোর। প্রায় ১০ বছর যুব দলে খেলে গেছেন। এই উইঙ্গারকে ট্রায়ালে ডাকতে চান জেমি ডে। সেটা নিয়ে কথাও বলেছেন হাফিজুলের সঙ্গে। বাংলাদেশে ফুটবল খেলার ব্যাপারে আগ্রহ আছে ১৯ বছরের এই তরুণের। হাফিজুলের ব্যাপারে জেমি ডে বলেন, ‘করোনার এই বিরতিতে তার সঙ্গে যোগাযোগ করি। প্রাথমিকভাবে সে আগ্রহ দেখিয়েছে। ওর বয়স খুবই কম। তরুণ একেবারে। ভালো খেলে। তাকে ট্রায়ালে ডাকতে পারি। আপাতত নজরে রাখছি।’ জাতীয় দলের অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া ছাড়াও বেশ কয়েকজন ইউরোপভিত্তিক বাংলাদেশি ফুটবলার ঢাকায় ট্রায়াল দিয়েছেন। তাদের মধ্যে রিয়াসাত খাতুন, জোসেফ রহমান, তারিক কাজী অন্যতম। তারিক বর্তমানে জাতীয় দলের পাইপলাইনে আছেন। বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের সামনের ম্যাচে লাল-সবুজ জার্সিতে দেখা যেতে পারে তাকে। পরের নামটিই হবে হাফিজুলের- এমনটাই আশা করছেন হেড কোচ।
এই বৃটিশ কোচ বলেন, খুব তাড়াতাড়ি আমি বাফুফের সঙ্গে পরবর্তী পরিকল্পনা নিয়ে আলোচনা করবো। আমাদের ইচ্ছা ছিল নভেম্বরে ফিফা ফ্রেন্ডলি ম্যাচ খেললে তার আগে এক দেড় সপ্তাহ অনুশীলন করানো। তারপর ফ্রেন্ডলি ম্যাচ দিয়ে তাদের পরীক্ষা করা। বুঝতে পারছি না সেটা সম্ভব হবে কি না। আমার কাছে কঠিনই মনে হচ্ছে। শেষ পর্যন্ত এ বছর কোনো ম্যাচ খেলতে না পারলে ২০২১ সালের পরিকল্পনাই সাজাতে হবে। আমার ঢাকায় ফেরার সময়টা বাফুফের পরিকল্পনার ওপর নির্ভর করছে।