আন্তর্জাতিকজাতীয়তথ্য প্রযুক্তি

পাকিস্তানি কমান্ডোদের হামলা আশঙ্কায় গুজরাটে উচ্চ সতর্কতা

পাকিস্তানের ‘কমান্ডোরা’ ভারতের জলসীমায় প্রবেশ করে সাম্প্রদায়িক অশান্তি অথবা হামলা চালাতে পারে গুজরাটে। গোয়েন্দাদের এমন হুঁশিয়ারিতে গুজরাট রাজ্যের সব বন্দরকে রাখা হয়েছে উচ্চ সতর্ক অবস্থায়। পোর্ট ট্রাস্ট কর্মকর্তাদের মতে, সমুদ্রপথে কুচ এলাকা দিয়ে ভারতের সীমানায় অনুপ্রবেশ করতে পারে পাকিস্তানি কমান্ডোরা। এ খবর দিয়েছে অনলাইন এনডিটিভি। আদানি পোর্টস অ্যান্ড এসইজেডের বিবৃতি অনুযায়ী, কোস্ট গার্ড স্টেশন থেকে তারা তথ্য পেয়েছে যে, হারামি নালা এলাকা দিয়ে কুচ উপসাগরে প্রবেশ করেছে পাকিস্তানে প্রশিক্ষিত কমান্ডোরা। মনে করা হচ্ছে, তারা পানির নিচে হামলা চালানোর ক্ষেত্রেও প্রশিক্ষিত। এর প্রেক্ষিতে নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা নিতে এবং গুজরাট রাজ্যে অনাকাঙ্খিত পরিস্থিতি প্রতিরোধে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। মুন্দ্রা বন্দরে সব জাহাজকে নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।

থাকতে বলা হয়েছে নজরদারিতে। 
দীনদয়াল পোর্ট ট্রাস্টের সিগন্যাল সুপারিনটেন্ডেন্ট স্বাক্ষরিত আরেক সতর্কতায় নিরাপত্তা বাড়াতে বলা হয়েছে। এর মধ্যে রযেছে উচ্চ পর্যায়ের প্রস্তুতি ও নজরদারি। ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাগুলোতে সম্ভাব্য সর্বোচ্চ পরিমাণে সম্পদ ও জনবল মোতায়েন করতে বলা হয়েছে। উপকূলের কাছাকাছি সন্দেহজনক কোনো মানুষ বা বোট দেখা গেলে তাদের বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। এ ছাড়া উপকূল অঞ্চলে টহল বাড়াতে বলা হয়েছে। অফিস অথবা বাড়ির কাছাকাটি সব যানবাহন চেক করতে বলা হয়েছে। 
কাশ্মীর নিয়ে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে যখন উত্তেজনা বিরাজ করছে তখন এমন এলার্ট দেয়া হয়েছে। এর আগে সোমবার ভারতের নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল করমবীর সিং গোয়েন্দা রিপোর্ট উল্লেখ করে বলেছেন, পাকিস্তানভিত্তিক সন্ত্রাসী গ্রুপ জৈশ ই মোহাম্মদ পানির নিচে থেকে হামলা চালানোর প্রশিক্ষিণ দিচ্ছে সদস্যদের। পুনেতে তিনি সাংবাদিকদের বলেছেন, আমরা গোয়েন্দা তথ্য পেয়েছি যে, হামলার জন্য জৈশ ই মোহাম্মদের পানির নিচের শাখা তার সদস্যদের প্রশিক্ষণ দিচ্ছে। এদিকে আমরা নজর রেখেছি। আপনাদেরকে নিশ্চয়তা দিতে পারি যে, আমরা এমন পরিকল্পনা পুরোপুরি ভ-ুল করে দেয়ার জন্য পুরোপুরিভাবে প্রস্তুত।