খেলার খবরদেশজুড়ে

হঠাৎ টাইগারদের ব্যাটে ছন্দপতন-ধস

এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ের ফাইনালে ঝড় ইনিংসের মাঠে হঠাৎ ছন্দপতন শুরু হয়েছে বাংলাদেশের। বিনা উইকেটে যেখানে বাংলাদেশের সংগ্রহ ছিল ১২০ রানে, সেখানে ১৩৯ রানে হারিয়েছে ৪ উইকেট।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ ২৮ ওভার শেষে বিনা উইকেটে ১৪০ রান। লিটন কুমার ৮৫ বলে ৯৫ এবং মাহমুদুল্লাহ ০ রান নিয়ে ব্যাট করছেন।

এশিয়া কাপের সব কটি ম্যাচে নাজমুল হোসেন শান্ত, লিটন দাস, মুমিনুল হক ও সৌম্য সরকারের একের এক ব্যর্থতায় ফাইনালে চমক আনলো বাংলাদেশ। অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজকে নিয়ে মাঠে নামেন লিটন কুমার দাস। এনে শুরুতেই ঝড় তোলেন লিটন। লিটনকে যোগ্য সঙ্গ দিতে থাকেন মিরাজ।

দলীয় ১২০ রানের মাথায় ভুবনেশ্বর, বুমরা, জাডেজা ও চাহালদের ব্যর্থ দিনে সফলতা আনেন যাদব। আফগানদের বিপক্ষে সফলতা পেলেও অাজ ব্যর্থ হয়ে ফিরে যান ইমরুল কায়েস। চাহালের এলবিডাব্লিউয়ের শিকার হয়ে ফিরে গেলে হাল ধরেন মুশফিকুর রহিম। কিন্তু মিস্টার ডিপেন্ডেবলও এদিন ব্যর্থ হয়। দলীয় ১৩৭ রানের মাথায় যাদবের দ্বিতীয় শিকার হয়ে ফিরে যান। ভুলবোঝাবুঝির মাধ্যমে রান আউট হয়ে ফিরে যায় মোহাম্মদ মিথুনও।

এর আগে টসে জিতে ফিল্ডিংয়ে সিদ্ধান্ত নেয় ভারত। ফলে ব্যাট হাতে মাঠে নামে মাশরাফি বাহিনী। বাংলাদেশ সময় শুক্রবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৫টা ৩০ মিনিটে দুবাই ইন্টারন্যাশন্যাল স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হয়। বাংলাদেশ দলে একটি পরিবর্তন আনা হয়েছে। মুমিনুল হকের জায়গায় ফিরেছেন নাজমুল ইসলাম অপু।

বাংলাদেশ একাদশ :
লিটন দাস, সৌম্য সরকার, মোহাম্মদ মিঠুন, মুশফিকুর রহীম, ইমরুল কায়েস, মাহমুদউল্লাহ, মেহেদী হাসান মিরাজ, মাশরাফি বিন মর্তুজা (অধিনায়ক), নাজমুল ইসলাম অপু, রুবেল হোসেন, মোস্তাফিজুর রহমান।

ভারতের একাদশ:
রোহিত শর্মা (অধিনায়ক), শিখর ধওয়ন, অম্বাতি রায়ুডু, দীনেশ কার্তিক, মহেন্দ্র সিংহ ধোনি (উইকেটকিপার), কেদার যাদব, রবীন্দ্র জাডেজা, ভুবনেশ্বর কুমার, কুলদীপ যাদব, যুজভেন্দ্র চহাল, যশপ্রীত বুমরা।